Ticker

6/recent/ticker-posts

Header Ads Widget

Responsive Advertisement


 

সিটং কোথায় ? কিভাবে যাবেন ?
 

কমলালেবুর দেশ সিটং

শহশহ জলপাইগুড়ি থেকে 50 কিলোমিটার েঁেঁেঁ েকেেকে 50  বিবি ঠাকুকুেে পদধূলি দেওয়া মৈতমৈতেয়ীদেবীেয়ীদেবীেয়ীদেবী বাড়ি দেখতেই আসা যাবে.  এবার নতুন পাহাড়পুরের পথে।  জজিবোনা োদোদোদদুদু ছড়িয়ে ছিটিয়েছিটিয়ে পাহাড়েড়ে ঢাল বববব.  নীল আকাশকে সসবাককষী েখেেখে দেখা মিলবে সব অচেনা গগগগামগুলি.  িয়িয়াং, টটবুখোলা, বংখোলা পপভৃতিভৃতি গ 0 খোলখোলখোলখোলা  আকাশেশে সীমাননতে পাহাড় ছবি আঁকে.  পাহাড়ের ঢালে ঘন সবুজ চাষ জমি।  অপঅপূপ এই পাহাড়ি গগগগামেমে পপতিটিতিটি বাড়িতে কমলালেবুলেবু বাগান.  উতঙউতঙগু পাহাড়েড়ে মাথায় সুনসুনদদ গিগিািিিিিিিিয় তবে  এখানে হোটেল নেই হোমসআছেটে.  এখানে লেপচাদেদে আতিথেয়তায় বড়ই বড়ই ् ् ् ् ् আতিথেয়ত আতিথেয়ত আঁকাবা পথ পেপেিয়ে আসতেআসতে  'সিটং ভিউপয়েনভিউপয়েনটে'. পাইন, ধুপিধুপি জঙজঙগলেগলে ফাঁক দিয়ে দেখা যাবে কাঞঞচনজঙচনজঙঘার ূপূপ.  অনবদ‍্য ও অসাধারণ।  আকাশেশে পপপপাননত জুড়ে শুধুই ঙেঙেঙে র তুলে তুলে  পাহাড়েড়ে হহদয় থেকে তুলোহালেবু ঝুড়ি মাথায় ককে ককষেত ফেফেৎ আদিবাসীদেসীদোয় ককে ককষেত ফেফেৎ আদিবাসীদেসীদোয় ককে ককষেতফেফো গান.  এভাবে সিটং- দুরাত কাটিয়ে দেওয়া য়।

মেঘের চাদরে মোড়া সিকসিন

তুষারধবল: সিকসিন থেকে কাঞ্চনজঙ্ঘা
উতউতততবঙবঙগেগে দাজিলিংজিলিংজিলিংজিলিং জেলার অনঅনততভুকভুকভুকত 'সিকসিন' একটিএকটিছোটট গগগগাম.  জায়গাটি মংপু থেকে ছছছকিলোমিটার উপউপে পপেদেদে ছছকিলোমিটার  এখানে সকালেলে ঘুমমিষটি ॿ ू কিখি মিষমিষটি ॿ কিাখিখি  মিষমিষ ও পাখিখি ছবি তোলার জনজনয আদআদড়দড়দদদদড়
সকালেলে গগম চায়েয়ে পেয়ালা হাতে বারাননায় গিয়ে দাঁড়ালে চোখেচোখে সামনে কাঞঞচনজঙচনজঙঘার সৌনসৌনদদযযযার সৌনসৌনদদযয মন ভভিয়েভভিয়ে.  সূসূযয অসঅসত যাওয়ার পপে মনেমনে, আকাশ যেন কালো চাদদে চার দিক থেকে আমাদেদে জড়িয়ে আছে.  আআ নীচেনীচে ছোট ছোট গগগগামগুলিমগুলি আলো দেখে মনে হয় আকাশেশে তার পৃথিবীপৃথিবী বুকে এসেছে.  এই দৃশদৃশয নিজেনিজে চোখে না দেখলে বিশবিশজেজে চোখে না দেখলে বিশবিশবাদদাসসারর
এখানকার মানুষেনুষে আতিথেয়তা এতটাই মনকে ছুঁয়ে যায় যে, বাববার আসতে ইচইচছে ককে.  এখান থেকে দাজিলিংজিলিংজিলিংজিলিং নয়তো লামাহাটা তিনচুলেতিনচুলে দিক থেকেও সারা দিনেদিনে জনজনয ঘুঘুে আসতে পােনেন.  সিকসিন জায়গাটি সেঞসেঞচল ওয়াইলইলড লাইফ সসযাংচুয়ািিি অনঅনততভুকভুকভুকত.  এখানে একটি জাঙ্গল ট্রেক। 
এনজেপিতে নেমে গাড়ি ককে  সিকসিনেসিকসিনে উদউদদেশে, যাওয়ার পথে সেবক.  সাড়ে তিন থেকে চার ঘণঘণটা সময় লাগেেদেুদিুদিগেেদেুদিুদিটা  মংপু থেকে যত উপযে৘দ উঠছি, ঘন মেঘ ততই যে৘দােনে  চাদিকেদিকে শুধু মেঘ আআ মেঘ.  তার সঙ্গে কনকনে ঠান্ডা হাওয়া।  ওখানে দুপুদুপুেে খাবার খেয়ে কিছুককিছুকষণ বিশবিশবিশবিশাম নিয়ে বেবেুতে হবে সেঞসেঞচল ওয়াইলইলড লাইফেইফে সফসফে.  প্রায় দেড় ঘণ্টা মতো এই ট্রেকিং -পথ।  একএক পাহাড়েড়ে জঙজঙগল, অনঅনয দিকে খাদ আআ মাঝখানে সসু মাটিটি রাসসতা ধধো ধধে হবে হবে.  বেশ গা ছমছমে ভাব আআ োমাববঞঞচক অনুমে ভাঞঞচকচক অনুভূুহ৤েহ৤অনুভূুহ৤েহ৤যখন জঙজঙগলেগলোঞঞচকচক অনুভূুহ৤েহ৤ যখন  জঙজঙগলেগলে মাঝামাঝি, তখন মনেমনে, মেঘ যেন পুপুো র রপুপুো রযেন র েখেছেেখেছেআটকে.  সামনে-পিছনে কিছুই দেখা যাচচছিল না, তবুও না থেমে গাইডেইডে সঙসঙগে এগিয়ে যেতে হবে. এই জঙজঙগলে য়েছেয়েছে চিতা বাঘ, ভলভললুক, বদভলেদেদেদেদর  টটেকিংেকিং যখন শেষ হেঁটে টটেকিংেকিং ফিযখনতে হেঁটেআও ফিপর ফিফিতে আআও ফিপর  আফিও পপরায় 10 আ২ পপরায় 10 ২0 া২ পু২  পুপুো রাসসতা মেঘে ঢাকা.  কোনও কমেকমে ধীধীে ধীধীে রাসসতার ধার দিয়ে হেঁটে বাড়ি ফিফিতে হবে.
উঁকিঝুঁকি: এমন অনেক পাখিখি দেখা মিলবে লামাহাটা পাকেকেকেকেকেকে উদউদদেশে. সুন্দর সাজানো এই পার্কটি। বেশ কিছুককিছুকষণ কাটিয়ে পপেে গনগনতবতবয লাভাসসসস পয়েনপয়েনট এবং তার সঙসঙগে তিসতিসতা ও ঙঙগমসগমসগিত নদী সঙসঙগমসগমসথল দেখতে. এএ পপ পেশক চা বাগান এবং তিনচুলে দেখল খল খহ আগে বাড়িড়ি দিনদিন বেবেোনোোনো আগে বাড়িড়ি মালকিন সকলকে উতউতততীয় পপিয়ে সমসমমান জানালেন. এই সফসফে এটা পপযটকদেযটকদেযটকদে কাছে সব চেযবে য়ে য়ে দবে সব ওখান থেকে বেবেিয়ে মংপুতে কবিগুকবিগুু বীনবীনবীনদদননাথ ঠাকুকুেে বাড়ি. খুব সুনসুনদদ ছোট বাড়িটি, অজানা ইতিইতিদদ ছোট বাড়িটি, অজানা ইতিইতিদদ ছোট েেু এসিটং এপ যোগীঘাট হয়ে সিটং-এএ কমলালোুলোু সিটং ফেবফেবুয়ুয়ফেবফেবুয়ুয়          

জানুয়ািি থেকে ফেবফেবুয়ুয়ািিি পপথমথম সপসপতাহ অবধি সিটং-এ গাছভছভতি কমলালেবু বাহার.
দার্জিলিং তো কত বার যাওয়া হয়!  ঝটিকা সফসফে সিকসিন ভভমণেমণেমণে অভিজঅভিজঞতা কিনকিনতু একেবােে খুবই ভালো.




একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ