Ticker

6/recent/ticker-posts

Header Ads Widget

Responsive Advertisement

কার্শিয়াং_ভ্রমন_গাইড :


 

কার্শিয়াং_ভ্রমন_গাইড 

নমস্কার বন্ধুরা...

- দিনের ছুটিতে, গৃষ্মের প্রবল দাবদাহ থেকে সাময়িক ভাবে মুক্তি পেতে গেছিলাম দার্জিলিং জেলার এক সাজানো শহর কার্শিয়াং

পরিকল্পনা মতো শিয়ালদহ থেকে রাত ১০:০৫ এর (১২৩৪৩) দার্জিলিং মেল ধরে পরেরদিন সকালে নিউ জলপাইগুড়ি পৌঁছোলাম।

সেখান থেকে একটা গাড়ি ভাড়া করে মাটিগারা - রোহীনি রোড্ হয়ে (43kms) মাত্র ঘন্টা দেড়েক সফরে পৌঁছোলাম কার্শিয়াং গাড়ি ভাড়া পড়ল : ১৪০০/-

এই জায়গার নামকরন : এই জায়গায় হয় Kurson Rip নামক সাদা রঙের ছোটো অর্কিড...সেই থেকেই লেপচা ভাষায়, Kurson Rip থেকেই এই জায়গার নাম হয়ে যায় "Kurseong-The land of white orchid".

,৮৬৪ ফুট উচ্চতায়, দুর্দান্ত চা বাগান, ঝর্ণা ধারা, পাহাড়ের আঁকাবাকা রাস্তার সাথে টয় ট্রেন দিয়ে সাজানো এই শহরকে প্রথম দেখাতেই মুগ্ধ হলাম।

হোটেল :

আমরা উঠেছিলাম একদমই জমজমাট জায়গায় অবস্থিত WBTDCL এর কার্শিয়াং টুরিস্ট লজে

দুর্দান্ত পরিবেশে সুসজ্জিত এই কার্শিয়াং লজ বেশ সুন্দর।

বেশিরভাগই কাঠ দিয়ে নির্মিত এই লজ্ , সত্যিই দেখবার মতো

সুন্দর কাঠের রেঁস্তোরা তে পাবেন কমপ্লিমেন্টারি ব্রেকফাস্টের ব্যবস্থা।

এছাড়াও এখানে পাবেন :

স্ট্যান্ডার্ড ডবল বেড রুম - ১৮০০/- প্রতিদিন

লার্জ ডবল বেড রুম - ২০০০/- প্রতিদিন

Extra Person - 20% charge.

Extra mattress - 30% charge.

এখানকার WBTDCL এর ওয়েবসাইট থেকে লজটি বুক করা হয় অনলাইনে।

DAY 1 : প্রথম দিন লজে পৌঁছে একটু বিশ্রামের পরে পায়ে হেঁটেই ঘুরে নিলাম কার্শিয়াং শহর আর তার সাথেই দেখলাম কার্শিয়াং এর কেন্দ্রবিন্দু প্রাচীন কার্শিয়াং স্টেশন।

এখানকার শহরাঞ্চল বেশ ঘিঞ্জি। একে ছোট রাস্তা তার ওপর এক পাশে টয় ট্রেনের লাইন থাকায়, প্রায়ই ট্রাফিক জ্যাম এর সৃষ্টি হয়।

কিন্তু বেশিরভাগ সময়ই যখন ঠান্ডা মেঘ শরীর স্পর্শ করে বয়ে যায়, তখন সেই ট্রাফিক জ্যামে ফেসে যাওয়ার ক্লান্তিও নিমেষে উধাও হয়ে যায়।

DAY 2 : এইদিন সকালে লজ থেকেই একটি অন্য গাড়ির সাথে যোগাযোগ করে শুরু করলাম আমাদের কার্শিয়াং ভ্রমন।

প্রথমে গেলাম একদম কাছেই এখানকার এক দুর্দান্ত ভিউ পয়েন্ট - EAGLE'S CRAG.

সুসজ্জিত পার্কের মধ্যে আছে একটি বেশ উঁচু নজর মিনার, যেখান থেকে দেখা যায় চমৎকার দৃশ্য।

এরপরে দেখে নিলাম GIDDHA PAHAR NETAJI MUSEUM. এই নেতাজী মিউজিয়াম এলে জানা যায় নেতাজীর জীবনে ঘটে যাওয়া বহু অজানা ঐতিহাসিক ঘটনা...যার বহু অমূল্য স্মৃতি হিসেবে এখানে সংগৃহীত আছে বহু জিনিস।

এছাড়াও এখান থেকে দেখা মিলবে চা বাগানের অসাধারন দৃশ্য, যা সত্যিই মন ভরিয়ে দেবে।

এরপরে এখানকার সবচেয়ে উঁচু হনুমান মূর্তি দেখে চলে গেলাম BAGORA এবং CHIMNEY নামক দুই অফবিট জায়গাতে।

বাগোরা যাওয়ার সময় এখানকার রাস্তা ঘাট পরিবেশ পাল্টে যায় হঠাৎ করেই। দুই পাশে সব উঁচু পাইন গাছ আর তার মাঝে কালো মসৃণ রাস্তা দিয়ে যেতে হয় এখানে।

নিরিবিলি পরিবেশে প্রাকৃতিক দৃশ্যপট উপভোগ করতে হলে....প্রায় ,১৫০ ফুট উচ্চতায় এই দুই জায়গায় না গেলে মিস্ করবেন।

এই দুই জায়গার পরে গেলাম এখানকার সবচেয়ে বিতর্কিত চর্চিত জায়গা DOW HILL.

অনেকেই বলে এই জায়গাতে নাকি অপদেবতার বাসস্থান।

কিন্তু তেনাদের না উপলব্ধি করতে পারলেও দুপুর বেলায় সেই উঁচু উঁচু গাছের থেকে একটানা ঝিঁঝি পোকার ডাক শুনে বেশ রোমাঞ্চকর লাগল।

এখানে দেখে নিলাম প্রাচীনতম সরকারি ভিক্টোরিয়া গার্লস স্কুল এবং আরও একটি ছেলেদের স্কুল, যার পাশেই দেখা যায় পরিত্যক্ত, পৌরাণিক সেই গির্জা।

এছাড়াও এখানে পাবেন একটি ডিয়ার পার্ক যেটা এখন Dow Hill Park বলে পরিচিত।

সবশেষে একজন চা প্রেমি হিসেবে চলে আসলাম এখানকার সেই জনপ্রিয় Margaret's Tea Lounge যেখানে উপভোগ করলাম হাই কোয়ালিটি, প্রিমিয়াম গ্রীন টি।

বিদেশী গুডরিক্ চা কোম্পানির, সবচেয়ে প্রসিদ্ধ Tea Lounge হওয়ার ফলে এখানে সবকিছুর দাম অনেকটাই বেশী।

কিন্তু চায়ের প্রতি একটা অন্য রকম ভালোবাসা থাকলে খাদের উপরে এই ঝুলন্ত লাউঞ্জে এখানকার চা, একবার অন্তত ট্রাই করতেই পারেন।

এইভাবেই এইদিন আমরা দেখলাম কার্শিয়াং তার পার্শ্ববর্তী বেশ কিছু জায়গা, এইদিনের গাড়ি ভাড়া পড়ল : ,৫০০/-

এইসব জায়গাগুলি সম্পর্কে একটা বিস্তারিত মানসভ্রমন পেতে নীচে দেওয়া এই ভিডিওটি দেখতে পারেন। আশা করি আপনাদের সবার কাজে লাগবে।

 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ