Ticker

6/recent/ticker-posts

Header Ads Widget

Responsive Advertisement

শান্ত নিরিবিলি মৌসুনী দ্বীপ - ঘুরে আসুন একবার



কেউ আপনাকে ডিসর্টাব করবে না শান্ত নিরিবিলি এক সুন্দর অবসর নেবার জন্য বেষ্ট স্পট হচ্ছে মৌসুনি দ্বীপ ইট-বালি-সিমেন্টর কোন খবর এখানে নেই, অন্য একটি পরিবেশ তৈরীর আধুনিক প্রচেষ্টা সারাদিন কোলাহলহীন ঝাউবন সমুদ্রের কোল ছুয়ে স্বাধীন ঘুরাফিরা করুন শব্দ দূষণের হাত থেকে স্বস্তি 

 একটা পরিকল্পনা করে যান মৌসুনীর কাছে। এক/দু দিনের ্যুর যথেষ্ট। বেশী সময় থাকলে নামখানা, বকখালি, সাগরদ্বীপ বা গঙ্গাসাগর ঘুরে নিতে পারেন এই সুযোগে। 

প্রথম দিন সুমদ্র সৈকৎ, সমুদ্র স্নান তারপর তাবুতে বা মাটহার্টে ফিরে আসুন, ঘন্টা খানিক বিশ্রাম নিয়ে ঝাউবনের মধ্যে হাঁটতে থাকুন। হাঁটতে হাঁটতে ঝাউয়ের স্নিগ্ধতা দেখে চলে আসুন গরিব ৎস্য পরিবারে নিবিড় গ্রামে। সরল মানুষ এরা। সমুদ্র তাদের জীবন। আদুল গায়ে শিশুদের হুটোপুটি দেখতে পাবেন। ভালো লাগবে গ্রাম জীবন। 

এরপর সৈকতে ফিরে আসুন। ঢেউয়ের আছাড়ি-পাছাড়ি দেখতে দেখতে মিশে যান প্রকৃতির সাথে

পশ্চিম আকাশে গোল থালার মত সূর্যের অস্ত গমন দেখতে দেহ-মন শুদ্ধ হয়ে উঠবে। ক্রমশ আকাশে ফুটে উঠবে এক দুই তিন করে অজস্র তারা মন্ডলী। চারিদিক ঝিঁ ঝিঁর ডাক শুনতে শুনতে ফিরে আসুন তাঁবুতে। সন্ধ্যার টিফিন ছোলা মুড়ি আর পকোড়ায় আনন্দের সাথে চা পান। ্যাম্প ফায়ার এবার, সূকনো কাঠে দাউদাউ আগুন। আদিবাসী রমণীদের ঝুমুর ৃত্য মন ভরিয়ে দেবে। মাদোলের দৃমি দৃমি শব্দে দুলুনি আসবেই আসবে। অনেকে নৃত্যে অংশ নেয় এরপর রাতের ডিনার। ঠিক দশ টায় নিস্প্রদীপ।রাতচরা পাখির ডাক আর ঢেউয়ের শব্দ শুনতে শুনতে ঘুম

পরদিন সকালে চাপান করে সোজা সমুদ্র সৈকতে চলে আসুন সূর্যোদয় দেখুন। আকাশ পরিস্কার  থাকলে আপনাকে আর পায় কে!

সকাল / টা নাগাদ স্থানীয় নৌকায় চলুন জম্বু দ্বীপে। ঘন্টা দেড়েকের মধ্যে পৌঁছে যাবেন জম্বুতে। কিন্তু দ্বীপে নামা নিষিদ্ধ। নৌকায় বসে দেখতে হবে। ্যানগ্রফের সবুজিমা, হরিণ, ঘড়িয়াল, বানর আর অসংখ্য পাখীর কলতান,উড়াউড়ি। মন ভরে যাবে আপনার। 

এবার টেন্টে ফিরে দূপুরের লান্স খেয়ে চেক্ আউট। ফিরে আসুন একই ভাবে

কি ভাবে যাওয়া যাব :- 

কলকাতা শিয়ালদহ সাউথ সেকশান থেকে নামখানা স্টেশান স্টেশানের বাইরে বাস বা টোটো করে নামখানা বাসট্যান্ড। এখান থেকে চিনাই নদী বাগডোবা ঘাট। চিনাই নদী পার হয়ে টোটোযোগে পৌঁছান যাবে মৌসুনী দ্বীপে। এসপ্লানেড থেকে--বাসে নামখানা। একই  রকম ভাবে পৌঁছান যাবে

কোথায় থাকা - খাওয়া যাবে :-  এখানে কোন হোটেল নেই। থাকতে হবে তাঁবু বা টেন্টে, কুঁড়ে ঘর বা মার্ড হাটে। সব মিলিয়ে খাওয়া-থাকা প্রতি দিনের খরচ জন প্রতি ১৩০০টাকার কমবেশী হবে প্রতিদন

 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ